• বুধবার, ২৯ মে ২০২৪, ১১:৩৫ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
ফিলিস্তিন রাষ্ট্রকে আনুষ্ঠানিক স্বীকৃতি দিল স্পেন ও নরওয়ে আরো ৩ উপজেলার ভোট স্থগিত: ইসি ঘূর্ণিঝড় রেমাল তান্ডবে দেড় কোটি গ্রাহক বিদ্যুৎহীন ঘূর্ণিঝড় রিমালে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শনে যাবেন প্রধানমন্ত্রী রেমাল তান্ডব: ১৯ টি উপজেলা ভোটগ্রহন স্থগিত: ইসি ঘূর্ণিঝড় রিমাল: জলোচ্ছ্বাসে তলিয়ে গেছে সুন্দরবন ঘূর্ণিঝড় রেমাল: শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ব্যাপারে যে সিদ্ধান্ত জানালেন শিক্ষামন্ত্রী বঙ্গবন্ধুর জীবনীভিত্তিক ডকুমেন্টারি ‘কলকাতায় মুজিব’ এর খসড়া কপি অবলোকন প্রধানমন্ত্রীর আনার হত্যা: কলকাতায় গিয়ে যা জানালো ডিবিপ্রধান স্বর্ণ খোঁজা ঠাকুরগাঁওয়ের সেই ইটভাটায় ১৪৪ ধারা জারি

ডেঙ্গু প্রতিরোধে ব্যাংকগুলোকে যা করতে হবে

অনলাইন ভার্সন
অনলাইন ভার্সন
আপডেটঃ : রবিবার, ১৩ আগস্ট, ২০২৩

নিজস্ব প্রতিবেদক

রাজধানীসহ সারা দেশে ডেঙ্গুর প্রাদুর্ভাব বেড়েছে। প্রতিদিনই নতুন নতুন ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে ভর্তি হচ্ছেন এবং কেউ কেউ মারাও যাচ্ছেন। এমন পরিস্থিতিতে ব্যাংক কর্মী ও গ্রাহকদের সুরক্ষায় ব্যাংক ও এর আশপাশে এডিস মশার প্রজনন ক্ষেত্র ধ্বংস এবং ডেঙ্গু প্রতিরোধে নিয়মিত পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখতে বিশেষ নির্দেশনা দিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

রোববার (১৩ আগস্ট) বাংলাদেশ ব্যাংকের ব্যাংকিং প্রবিধি ও নীতি বিভাগ এ সংক্রান্ত নির্দেশনা দেয়।

এতে বলা হয়, সাম্প্রতিক সময়ে ঢাকাসহ সারা দেশে ডেঙ্গুর প্রাদুর্ভাব বেড়েছে। প্রতিদিন ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে ভর্তি হচ্ছেন এবং এদের মধ্যে কেউ কেউ মৃত্যুবরণ করছেন। যত্রতত্র ময়লা-আবর্জনা ফেলা, মৌসুমি বৃষ্টিপাত, জমানো পানি, বৈশ্বিক জলবায়ু পরিবর্তন ইত্যাদি কারণে এডিস মশার প্রজনন ক্ষেত্র প্রসারিত হচ্ছে। ফলে এডিস মশার প্রজনন ক্ষেত্র ধ্বংস এবং ডেঙ্গু প্রতিরোধে জনসচেতনতা বাড়াতে হবে।

কেন্দ্রীয় ব্যাংক জানায়, ডেঙ্গু রোগ প্রতিরোধে সচেতনতা বাড়ানোর পাশাপাশি ব্যাংকের কর্মকর্তা, কর্মচারী ও গ্রাহকদের সুরক্ষার্থে ব্যাংকের প্রধান কার্যালয়, শাখা, উপশাখা, এজেন্ট আউটলেট, ট্রেনিং সেন্টার, এটিএম বুথ-সহ সব কেন্দ্র ও এর আশপাশে যেখানে এডিস মশার বিস্তার হতে পারে এমন স্থানগুলো নিয়মিত পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখতে হবে।

এডিস মশার প্রজননক্ষেত্র অর্থাৎ পানি জমার পাত্র, স্থানগুলো যেমন– পরিত্যক্ত ফুলের টব, অব্যবহৃত কৌটা, পরিত্যক্ত টায়ার, প্লাস্টিকের বোতল ইত্যাদি বিনষ্ট করতে হবে এবং অন্যান্য ক্ষেত্র যেমন– ভবনের ছাদ, গ্যারেজ, এসি, ফ্রিজ, পানির ট্যাংক, রান্নাঘর ইত্যাদি সব সময় পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখতে হবে।

অফিস ভবনের পাশাপাশি ব্যাংকের কর্মকর্তা, কর্মচারীদের জন্য নির্মিত আবাসিক স্থাপনাগুলোতে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা নিশ্চিত করাসহ এ বিষয়ে সচেতনতা বাড়াতে ব্যাংক প্রয়োজনীয় উদ্যোগ গ্রহণ করবে।

ব্যাংকের কর্মক্ষেত্র ও সংলগ্ন অংশে নিয়মিত মশা নিধনের ওষুধ, স্প্রে কিংবা কয়েল ব্যবহার করতে হবে।

গ্রাম, শহর ও নগরের পরিচ্ছন্নতা নিশ্চিত করতে দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রতিষ্ঠানগুলো যেমন– পৌরসভা, সিটি কর্পোরেশনের নেওয়া উদ্যোগগুলো বাস্তবায়নে ব্যাংক প্রয়োজনীয় সহযোগিতা করবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো নিউজ