• বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ০৩:১০ পূর্বাহ্ন

শ্রীলঙ্কাকে হারাল নিউজিল্যান্ড

অনলাইন ভার্সন
অনলাইন ভার্সন
আপডেটঃ : সোমবার, ১৩ মার্চ, ২০২৩

এক বলে চাই এক রান, আসিতা ফার্নেন্দোর করা বলটা কিপারের হাতে রেখেই দৌড় দিলেন কেইন উইলিয়ামসন। নন স্ট্রাইকিং প্রান্তে স্টাম্প ভাঙ্গার আগে পৌঁছে গেলেন তিনি। টানটান উত্তেজনা ছড়িয়ে শ্রীলঙ্কাকে প্রথম টেস্টে হারাল নিউজিল্যান্ড।

সোমবার (১৩ মার্চ) ক্রাইস্টচার্চে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে প্রথম টেস্টে ২ উইকেটে জিতেছে কিউইরা। শেষ ওভার পর্যন্ত নাটকীয়তা আর রঙ বদলে টেস্ট ক্রিকেট মেলে ধরে গৌরবময় অনিশ্চয়তা। তাতে সেঞ্চুরি করে নায়ক হয়ে দলকে জেতালেন উইলিয়ামসন।

ম্যাচ জিততে শেষ ৫ ওভারে স্বাগতিকদের দরকার ছিল ৩৭ রান, ৩ ওভারে ২০, শেষ ওভারে দরকার দাঁড়াল ৮ রানের। অবস্থা এমন, ওই ওভার ৩ উইকেট নিলে জিততে পারত শ্রীলঙ্কাও। তারা নিতে পারল আরও এক উইকেট। তৈরি করতে পারল টাইয়ের পরিস্থিতি। কিন্তু শেষ পর্যন্ত আর পেরে উঠল না।

সীমিত ওভারের উত্তেজনা দেখা দেওয়া টেস্টের শেষ বিকালটাতে আলো কাড়েন উইলিয়ামসন। দলকে জিতিয়ে তিনি অপরাজিত থাকেন ১৯৪ বলে ১২১ রানে। এর আগে ড্যারেল মিচেল খেলে গেছেন মোড় ঘোরানো ইনিংস। ৮৬ বলে ৮১ রান করে সমীকরণ সহজ করে দিয়ে যান তিনি।

তাদের দারুণ রোমাঞ্চকর জয়ের সরাসরি সুবিধাভোগী আবার ভারত। কারণ এই টেস্টে হেরে বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালের লড়াই থেকে ছিটকে গেছে শ্রীলঙ্কা। আর ফাইনাল নিশ্চিত হয়ে গেছে রোহিত শর্মাদের। আগেই ফাইনাল নিশ্চিত করা অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গী হলো তারা। আগামী ৭ জুন ওভালে টেস্টের সেরা হওয়ার লড়াইয়ে নামবে ভারত-অস্ট্রেলিয়া।

২৮৫ রানের লক্ষ্য পূরণ করতে শেষ দিনে হাতে ৯ উইকেট নিয়ে ২৫৭ রান দরকার ছিল নিউজিল্যান্ডের। নিজেদের মাঠ হলেও পঞ্চম দিনের পিচে কাজটা সহজ ছিল না।

সকালে শুরুটা ভালো করলেও টম ল্যাথাম ফেরেন থিতু হয়ে। প্রভাত জয়াসুরিয়ার স্পিনে ২৫ রানে থামেন তিনি। তিনে নামা উইলিয়ামসনের সঙ্গে মিলে জুটি পাচ্ছিলেন হেনরি নিকোলস। থিতু হওয়া এই ব্যাটারকে থামান কাসুন রাজিতা। এরপর মোড় ঘুরিয়ে দেওয়া জুটি পান মিচেল-উইলিয়ামসন।

চতুর্থ উইকেটে তাদের ১৪২ রানের জুটি আসে স্রেফ ১৫৭ বলে। ৮৬ বলে ৮১ রান করে তাতে রানের চাকায় গতি আনেন মিচেল।

তবে আসিতা ফার্নেন্দো মিচেল ও টম ব্ল্যান্ডেলকে পর পর তুলে নিলে ম্যাচে ফেরে শ্রীলঙ্কা। ৩৯ বলে যখন জিততে দরকার ৪৭ তখন দোলাচল ছিল বেশ।মিচেল ব্রেসওয়েলকে এক পাশে রেখে রান আনছিলেন উইলিয়ামসন। আসিতা ব্রেসওয়েলকেও ফেরালো তৈরি হয় উত্তেজনা। অধিনায়ক টিম সাউদি নেমে বড় শটের চেষ্টায় ফেরেন লাহিরু কুমারার বলে। একদম শেষ ওভারে রান আউটে কাটা পড়েন ম্যাট হেনরি।

শেষ ৩ বলে যখন দরকার ৫ রান তখন বাউন্ডারি মেরে দেন উইলিয়ামসন। পঞ্চম বলটাতে বাউন্সার মেরে ডট আনেন আসিতা। শেষ বলও দারুণ করেছিলেন তিনি। উইলিয়ামন পরাস্ত হলেও বাই থেকে কোনরকমে এসে যায় এক রান।

এই জয়ে দুই টেস্টের সিরিজেও ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে গেল কিউইরা। দারুণ খেলেও হতাশায় মাঠ ছাড়তে হলো লঙ্কানদের।

কুশল মেন্ডিস, দিমুথ করুনারত্নের ফিফটি আর অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউসের ব্যাটে প্রথম ইনিংসে ৩৫৫ রান করেছিল সফরকারীরা। জবাবে ড্যারলে মিচেলের সেঞ্চুরিতে ৩৭৩ রান করে লিড নেয় নিউজিল্যান্ড।

দ্বিতীয় ইনিংসে ম্যাথিউসের সেঞ্চুরিতে ৩০২ রান তুলে জেতার সম্ভাবনা জাগায় শ্রীলঙ্কা। ভালো বোলিং করলেও উইলিয়ামসনের ঝলকে পেরে উঠেনি তারা


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো নিউজ

You cannot copy content of this page

You cannot copy content of this page