• বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ০৩:০২ পূর্বাহ্ন

মেসিদের নতুন ঠিকানা কোথায়

অনলাইন ভার্সন
অনলাইন ভার্সন
আপডেটঃ : মঙ্গলবার, ২৯ আগস্ট, ২০২৩

খেলাধুলা ডেস্ক

 

ইন্টার মায়ামিতে সুখেই আছেন আর্জেন্টাইন ফুটবল জাদুকর লিওনেল মেসি। সুখে না থেকে উপায় কি? ৯ ম্যাচেই করে ফেলেছেন ১১ গোল আর সঙ্গে আছে ৩ অ্যাসিস্ট। কদিন আগে যে ক্লাবের যাত্রা শুরু হয়েছে, তাদেরকেই এনে দিয়েছেন শিরোপার স্বাদ। যে কারণে বিশ্বকাপ জেতা এই অধিনায়ককে আনা হয়েছিল, ইন্টার মায়ামির সেই প্রত্যাশাও পূরণ করেছেন মেসি।

তবে, মায়ামির এই হোম গ্রাউন্ড যেন একটু বেমানান মেসির জন্য। বার্সেলোনার ন্যু ক্যাম্প বা প্যারিসের পার্ক দে প্রিন্সেসের মত বড় স্টেডিয়াম নেই মায়ামির। দ্য হেরন্সদের স্টেডিয়াম ড্রাইভ পিংকে আসন সংখ্যা মাত্র ১৮ হাজার। এমনকি স্টেডিয়ামে নেই পর্যাপ্ত সুযোগ সুবিধা। দলের সাবেক গোলরক্ষক গোলরক্ষক নিক মার্সম্যান তো বলেই বসেছিলেন, মেসিকে দলে আনার জন্য প্রস্তুত নয় ইন্টার মায়ামি। এমন মন্তব্যের জেরে অবশ্য ক্লাব থেকে বিদায়ও করা হয়েছে তাকে।

এবার অবশ্য সেসব বিতর্কের অবসান হতে চলেছে। মেসির জন্য নতুন এক ঠিকানা বেছে নিয়েছে ইন্টার মায়ামির মালিকপক্ষ। আগামী ২০২৫ সালেই নতুন স্টেডিয়ামে যাবে মায়ামি। যার নাম রাখা হয়েছে ‘মায়ামি ফ্রিডম পার্ক।’ ধারণা করা হচ্ছে, স্টেডিয়ামে ২৫ হাজার দর্শকধারণ ক্ষমতার স্টেডিয়াম হবে এটি।

ক্লাবের অন্যতম মালিক জর্জ মাসই বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। জানিয়েছেন, ২০২৫ সালে মেসিকে এই মাঠেই দেখা যাবে, ‘ইন্টার মায়ামির সঙ্গে আমার পরিবার সত্যিকারের যুগান্তকারী কিছু তৈরির কাজে হাত দিয়েছে। চার বছরের মধ্যে আমরা পুরো বিশ্বে যুক্তরাষ্ট্রের ফুটবলের ব্যাপারে ধারণা বদলে দিয়েছি। মায়ামি ফ্রিডম পার্কের নির্মাণের ক্ষেত্রে সেই একই লক্ষ্য আমাদের পথ দেখাচ্ছি।

নতুন স্টেডিয়ামকে স্পোর্টস কমপ্লেক্স হিসেবে গড়ে তোলার ঘোষণা দিয়ে রেখেছেন জর্জ মাস, ‘স্পোর্টস কমপ্লেক্স কেমন হতে পারে তার একটা নতুন মাইলফলক আমরা তৈরি করবো। মায়ামির বাসিন্দাদের সারাবছরের জন্য খাবার আর বিনোদনের একও ঠিকানা হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করার পরিকল্পনা আমাদের। আমাদের সর্বাধুনিক এই স্টেডিয়ামে দর্শকদের আমন্ত্রণ জানানোর জন্য তর সইছে না। সেইসঙ্গে ২০২৫ সালে প্রথমবারের মত স্টেডিয়ামে মেসি এবং আপনাদের ইন্টার মায়ামির খেলোয়াড়দের নামে স্লোগান শোনার অপেক্ষায় আছি।’

অবশ্য ২০২৫ সালে মেসিকে ইন্টার মায়ামিতে পুরোপুরি পাওয়া যাবে কিনা তা নিয়ে প্রশ্ন থেকেই যায়। ক্লাবটির সঙ্গে আর্জেন্টাইন অধিনায়কের চুক্তি আছে ২০২৫ সাল পর্যন্ত। অবশ্য মেসি চাইলে আরও এক বছর থাকতে পারেন মায়ামিতে। সেই সুযোগও রাখা হয়েছে তার চুক্তিতে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো নিউজ

You cannot copy content of this page

You cannot copy content of this page