• সোমবার, ২০ মে ২০২৪, ০৬:৪৩ অপরাহ্ন

খালেদা-তারেক কোনো দিনই ক্ষমতায় আসতে পারবে না : নানক

অনলাইন ভার্সন
অনলাইন ভার্সন
আপডেটঃ : শনিবার, ২৬ আগস্ট, ২০২৩

নিজস্ব প্রতিবেদক

আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য জাহাঙ্গীর কবির নানক বলেছেন, বিএনপি নির্বাচন নিয়ে পুতুল নাচ শুরু করেছে। এই পুতুল নাচ করে লাভ নেই। বিএনপির বন্ধুরা এখনও সময় আছে, খালেদা জিয়া একজন দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি, তারেক জিয়া একজন পালাতক আসামি, তারা কোনো দিন নির্বাচন করতে পারবে না। খালেদা জিয়া এবং তারেক রহমান কোনো দিনই ক্ষমতায় আসতে পারবে না। সুতরাং বিএনপির বন্ধুরা আপনাদের প্রতিবাদ করতে হবে, প্রতিরোধ করে বিএনপিকে গণতান্ত্রিক ধারায় নিয়ে আসুন। তাহলে বিএনপির শেষ রক্ষা হওয়ার সুযোগ রয়েছে।

শনিবার (২৬ আগস্ট) দুপুরে মৌলভীবাজার জেলা শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে জেলা পরিষদ আয়োজিত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৮তম শাহাদতবার্ষিকী ও শোকাবহ আগস্ট উপলক্ষ্যে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

জাহাঙ্গীর কবির নানক বলেন, গণতন্ত্রের পথে নির্বাচনের পথে না এসে আবার আব্দুর রহমান, বাঙলা ভাই জঙ্গি জেএমবি তৈরি করে কুলাউড়ায় গোপনে ট্রেনিং দেওয়াবেন, নির্বাচনকে বাধাগ্রস্ত করার জন্য অস্ত্র ঠেকিয়ে সন্ত্রাস করবেন, তা আর হবে না। এই দেশ আমাদের, এই দেশ আপনাদের, এই দেশের জন্য আমরা রক্ত দিয়েছি। তাই স্বাধীনতা রক্ষার জন্য আমাদের ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে।

তিনি বলেন, দেশকে অন্ধকারে নিমজ্জিত করেছিল বিএনপি। মাত্র তিন হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ ছিল। বিএনপির আমলে বিদ্যুৎ কবে আসবে সেই খবর মানুষ জানতে চাইতো। আজকে বাংলাদেশে শেখ হাসিনার সরকার ২৫ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন করছে।

জাহাঙ্গীর কবির নানক বলেন, বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর জিয়াউর রহমান খুনিদের আশ্রয়-প্রশ্রয় দিয়ে নিরাপদে বিদেশে পাঠিয়েছে, এর মাধ্যমে প্রমাণিত হয় জিয়াউর রহমান এই খুনে জড়িত। বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনাকে হত্যার জন্য তারেক রহমান ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা করেছে। যেই গ্রেনেড পাকিস্তান আর্মি ব্যবহার করে, সেই গ্রেনেড দিয়ে হামলা চালিয়ে ২৪ জনকে হত্যা করেছে।

জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মিছবাহুর রহমানের সভাপতিত্বে সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন সংসদ সদস্য নেছার আহমদ, পুলিশ সুপার মো. মনজুর রহমান, স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালক মল্লিকা দে, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো. আবদুল হক, পৌরসভার মেয়র ফজলুর রহমান, সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কামাল হোসেন প্রমুখ।

আলোচনা সভা শেষে জেলা পরিষদের পক্ষ থেকে ছাত্র-ছাত্রীদের এককালীন ২৫ লাখ টাকার বৃত্তি, ১০০ সেলাই মেশিন, ২৫ লাখ টাকার ক্রিড়া সামগ্রী বিতরণ ও কম্পিউটার প্রশিক্ষণার্থীদের সনদ প্রদান করা হয়।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো নিউজ