• বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ০৩:১৫ অপরাহ্ন

মাহমুদউল্লাহকে দলে ফেরাতে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা

অনলাইন ভার্সন
অনলাইন ভার্সন
আপডেটঃ : বুধবার, ১৬ আগস্ট, ২০২৩

নিজস্ব প্রতিবেদক

দেশের ক্রিকেট অঙ্গনে এখন আলোচনার বড় নাম মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। সিনিয়র এই ক্রিকেটারকে ছাড়াই এশিয়া কাপের জন্য দল ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ। অনেকের ধারণা, বিশ্বকাপেও হয়ত উপেক্ষিতই থেকে যাবেন ‘সাইলেন্ট কিলার’। রিয়াদ নিজের শেষ ম্যাচটা খেলে ফেলেছেন এমন বিশ্বাসও আছে অনেকের।

অভিজ্ঞ এই টাইগার ব্যাটারকে জাতীয় দলে ফেরাতে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করা হয়েছে। বুধবার (১৬ আগস্ট) প্রেসক্লাবের সামনে মানবন্ধন করে এ কথা জানান মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ সমর্থক গোষ্ঠী।

চলতি বছরের মার্চে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ঘরের মাঠে সর্বশেষ বাংলাদেশের জার্সিতে খেলেছিলেন রিয়াদ। এরপর ‘বিশ্রামের’ নাম দিয়ে জাতীয় দলের বাইরে রাখা হয় ৩৭ বছর বয়সী এই অলরাউন্ডারকে। তবে এশিয়া কাপের ক্যাম্প শুরুর আগে তাকে অনুশীলনে ফিরতে দেখে ভিন্ন কিছুরই ইঙ্গিত মিলছিল। সেই ভিন্ন কিছুর আশা আপাতত এশিয়া কাপের স্কোয়াড ঘোষণার মধ্য দিয়ে শেষ হয়ে গেছে অনেকটাই।

আজকের মানবন্ধনে মোহাম্মদপুর থেকে আগত মাহমুদউল্লাহ ভক্ত আবু জাফর বলেন, রিয়াদ একজন টপ অর্ডার ব্যাটার। তাকে এভাবে বাদ দেওয়াটা মোটেই ঠিক হয়নি। আমরা আবেগ নয়, পারফরম্যান্স দিয়ে বিচারের কথা বলছি। যখন দেখলাম রান করার পরেও তাকে বাদ দেওয়া হলো, তখনই সিদ্ধান্ত নিলাম যে প্রতিবাদ করবো।

রিয়াদের পরিবর্তে যাদের দলে নেওয়া হয়েছে, তাদের নিয়েও প্রশ্ন তুলছেন সমর্থকরা। একজন বলেন, উনাকে বাদ দিয়ে বাকি যে তিনজনকে নেওয়া হয়েছে, তাদের পারফরম্যান্স বেশ লো। প্রধানমন্ত্রী একজন ক্রিকেট অনুরাগী মানুষ, আশা করি তিনি বিষয়টি বিবেচনায় রাখবেন। আমরা গণভবনে গিয়ে তার নিকট স্মারকলিপি প্রদান করবো।

রিয়াদ সমর্থকদের দাবি, প্রধান কোচ হাথুরুসিংহের চাপে বিসিবি রিয়াদকে বাদ দেওয়ার মতো হঠকারি সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তাই এই ক্রিকেটারকে ফেরানো না হলে তারা ক্রীড়ামন্ত্রী ও প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশে স্মারকলিপি দেবেন।

এর আগে রিয়াদকে দলে ফেরানোর দাবিতে তার নিজ জেলা ময়মনসিংহেও মানববন্ধন করেছেন সমর্থকরা।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো নিউজ

You cannot copy content of this page

You cannot copy content of this page