• বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০১:০২ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
চট্টগ্রামে ভাষা শহীদদের স্মরণে শহীদ মিনারে বিএমইউজে’র শ্রদ্ধাঞ্জলি চট্টগ্রাম হাজিপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় উদ্যোগে মাতৃভাষা দিবস ও ক্রিয়া পুরস্কার বিতরণ মা‌টিরাঙ্গায় শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে ভাষাশহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জেলা পুলিশ, খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা কর্তৃক “মহান শহিদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস” -২০২৪ উপলক্ষ্যে সকল শহিদের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা জ্ঞাপন ভাষাশহীদদের প্রতি হালিশহর থানার শ্রদ্ধা নিবেদন সিন্দুকছড়ি জোনের মাসিক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ইউনিয়নের চট্টগ্রাম জেলার আহ্বায়ক কমিটি গঠন আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা উপলক্ষে বই পাঠ উৎসব অনুষ্ঠিত নাইক্ষ্যংছড়িতে আইন-শৃঙ্খলা সভায়- খাদ্যশস্য,ভোজ্য ও জ্বালানী তেল পাচার বন্ধ ও ৫ স্কুল খুলে দেয়ার সিদ্ধান্ত রাঙ্গামাটিতে ৩৫০ পিস ইয়াবা সহ দুই মাদক ব্যবসায়ী আটক

১৩ বছর পর “হাওয়া” সিনেমার মাধ্যমে উদ্বোধন যাচ্ছে রাজশাহী কাটাখালীর “রাজ তিলক” সিনেমা হল

অনলাইন ভার্সন
অনলাইন ভার্সন
আপডেটঃ : মঙ্গলবার, ১৪ মার্চ, ২০২৩

নজরুল ইসলাম জুলু:
দীর্ঘ ১৩ বছর পর খুলছে রাজশাহী কাটাখালির “রাজ তিলক” সিনেমা হল টি। হাওয়া’ সিনেমার মধ্যদিয়ে উদ্বোধন হতে যাচ্ছে রাজশাহীর ‘রাজ তিলক’ সিমেনা হল। আগামি শুক্রবার (১৭ মার্চ) চালু বিকেলে অনুষ্ঠানিকভাবে এই সিনেমা হলটি উদ্বোধন করা হবে। উদ্বোধনী দিনে বিকেল সাড়ে তিনটা থেকে ‘হাওয়া’ সিনেমা সম্প্রচার করা হবে।
এর আগে ২০১২ সালে ‘কমন জেন্ডার’ সিনেমা চলাকালে শহরের অদূরে পবার কাটাখালী বাজারের পুরনো রাজতিলক হলটিও বন্ধ হয়ে যায়। তখন রুম্মান হলটি কিনে নেন। কিন্তু তিনিও হলটি চালু করতে পারেননি। তার পরে দীর্ঘ দিন এমন অবস্থায় পড়ে ছিল। এবার তার কাছ থেকে হলটি নিয়ে চালুর উদ্যোগ নিয়েছেন চলচ্চিত্রের প্রডাকশন ম্যানেজার সাজ্জাদ হোসেন সাগর। তিনি হলটি চালুর উদ্যোগ নিয়ে নতুন করে রঙ ও বসার চেয়ার স্থাপন করেছেন।
প্রডাকশন ম্যানেজার সাজ্জাদ হোসেন সাগর বলেন, হলে সিনেমা চালাতে সবধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। উদ্বোধন উপলক্ষে শেষ সময়ের সাজ-সজ্জার কাজ সম্পন্ন করা হচ্ছে। সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে আগামি ১৭ মার্চ শুক্রবার বিকেলে এই সিনেমা হলটি চালু করা হবে। প্রথম দিন ‘হাওয়া’ সিনেমা চালানো হবে। আগামিকাল মঙ্গলবার থেকে হলের আশে-পাশের এলাকায় মাইকিং করা হবে বলে জানান তিনি।
উল্লেখিত: রাজশাহীর মহানগরীর গুরুত্বপূর্ণ সিনেমা হল গুলো ভেঙে ফেলে তৈরি করা হয়েছে ফ্ল্যাট বাড়ি ও মার্কেট। যার ফলে সিনেমা প্রেমী মানুষগুলো বঞ্চিত হয়েছে সিনেমা দেখা থেকে। যদিও দেশে ভালো সিনেমা আর নির্মাণ করতে দেখা যায় না। যার ফলে সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে ভারতীয় সিনেমার উপরের ঝুঁকি বেশি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো নিউজ

You cannot copy content of this page

You cannot copy content of this page