• সোমবার, ২০ মে ২০২৪, ০৯:২১ অপরাহ্ন

আলেস বিয়ালিয়াৎস্কিকে ১০ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে বেলারুশের আদালত

অনলাইন ভার্সন
অনলাইন ভার্সন
আপডেটঃ : শনিবার, ৪ মার্চ, ২০২৩

শান্তিতে নোবেল পুরস্কার জয়ী ও মানবাধিকারকর্মী আলেস বিয়ালিয়াৎস্কিকে ১০ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে বেলারুশের আদালত।
শুক্রবার (৩ ফেব্রুয়ারি) বিক্ষোভকারীদেরকে অর্থায়ন ও অন্যান্য অপরাধের অভিযোগে আদালত এ দণ্ড দিয়েছে। মানবাধিকার গোষ্ঠীগুলো বিয়ালিয়াৎস্কির বিরুদ্ধে এই মামলা রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত বলে উল্লেখ করেছে।নির্বাসিত বেলারুশিয়ান বিরোধীদলীয় নেতা সভিয়াতলানা সিখানৌস্কায়া এআদালতের এ রায়কে ‘ভয়ঙ্কর’ আখ্যা দিয়ে বলেছেন, বিয়ালিয়াৎস্কি এবং একই বিচারে দণ্ডিত অন্যান্য মানবাধিকার কর্মীদের অন্যায়ভাবে দোষী সাব্যস্ত করা হয়েছে।এক টুইটে তিনি লিখেছেন, “এই লজ্জাজনক অন্যায়ের বিরুদ্ধে লড়তে এবং তাদের মুক্ত করতে আমাদেরকে অবশ্যই সবকিছু করতে হবে।”বিয়ালিয়াৎস্কি আদালতে তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ অস্বীকার করেন। অন্যদিকে, কৌসুলিরা মিনস্ক আদালতকে তাকে ১২ বছরের দণ্ড দিতে বলেছিলেন। তিনি এবং আরও তিনজনের বিরুদ্ধে বিক্ষোভে অর্থায়ন এবং অর্থ পাচারের অভিযোগ আনা হয়েছে।বিয়ালিয়াৎস্কির সমর্থকরা বলছেন, বেলারুশের স্বৈরাচারি আলেক্সান্ডার লুকাশেঙ্কো প্রশাসন তাকে নিশ্চুপ করাতে চাইছে।২০২২ সালে রাশিয়া ও ইউক্রেইনের মানবাধিকার কর্মীদের সঙ্গে শান্তিতে নোবেল পুরস্কার পান বেলারুশের বিয়ালিয়াৎস্কি।এর আগে ২০২০ সালে বেলারুশের নির্বাচন ঘিরে ব্যাপক প্রতিবাদ-বিক্ষোভের পর ২০২১ সালে গ্রেপ্তার হয়েছিলেন বিয়ালিয়াৎস্কি। বিরোধীদের কর্মকান্ডে তহবিল সহায়তা করতে বেলারুশে অর্থ পাচারের অভিযোগ আনা হয় তার বিরুদ্ধে।ভকারীদের ওপর পুলিশের নির্মম নিপীড়ন এবং লুকাশেঙ্কোর সমালোচকদের নিয়মিতই গ্রেপ্তার এবং জেল দেওয়া হচ্ছিল সেই সময়। এই চর্চা শুরু হয়েছিল ২০২০ সাল থেকেই।৬০ বছর বয়সী বিয়ালিয়াৎস্কি ভিয়াসনা মানবাধিকার গোষ্ঠীর সহ-প্রতিষ্ঠাতা। ২০২০ সালের গ্রীষ্ম থেকে ২০২১ সাল পর্যন্ত সরকারবিরোধী বিক্ষোভের সময় কারাগারে বন্দি হওয়া শত শত বেলারুশ নাগরিকের মধ্যে বিয়ালিয়াৎস্কিই ছিলেন সবচেয়ে বিশিষ্ট মানবাধিকারকর্মী।কারাগারে আটকদের আইনি ও আর্থিক সহায়তা দিতে ভিয়াসনা মানবাধিকার গোষ্ঠী অগ্রণী ভূমিকা নিয়েছিল। ২০১১ সালে কর ফাঁকির অভিযোগে বিয়ালিয়াৎস্কিকে সাড়ে চার বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়।প্রায় তিনবছর জেলে থাকার পর ২০১৪ সালে সাধারণ ক্ষমার আওতায় তিনি মুক্তি পান। কিন্তু ২০২১ সালে আবার গ্রেপ্তার হন বিয়ালিয়াৎস্কি। তখন থেকেই বিচারের আগ পর্যন্ত তাকে কারাগারে আটক রাখা হয়েছিল।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো নিউজ